আক্রান্ত
১৫২১৬
সুস্থ
৩১৯৬
মৃত্যু
২৪৫

খালি পড়ে আছে করোনা হাসপাতাল, চট্টগ্রামেই ফাঁকা আইসিইউসহ ৪০০ শয্যা

0

করোনাভাইরাসে দেশে এরইমধ্যে মৃতের সংখ্যা ছুঁয়েছে দুই হাজার ২৭৫ জনে। প্রায় প্রতিদিনই মারা যাচ্ছেন ত্রিশ থেকে পঞ্চাশ জন করোনা রোগী। তবে এখন যেসব করোনা রোগী মারা যাচ্ছেন তাদের অধিকাংশ রোগীর মৃত্যু বাসায় হচ্ছে। করোনা চিকিৎসার জন্য নির্ধারিত হাসপাতালের অব্যবস্থাপনা, গলাকাটা বিল, ঠিকমতো চিকিৎসা না পাওয়া, আর্থিক সামর্থ্য না থাকাসহ নানা কারণে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন না আক্রান্তরা। এ অবস্থায় করোনার জন্য নির্ধারিত হাসপাতালে রোগীর অভাবে প্রায় তিনভাগের দুইভাগ শয্যাই ফাঁকা থেকে যাচ্ছে। খোদ চট্টগ্রাম মহানগরীতেই এই সংখ্যা ৩৮৩টি। যার মধ্যে আইসিইউ শয্যা ৩৯ এবং সাধারণ শয্যা খালি ৩৪৪টি।

শুক্রবার (১০ জুলাই) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত হেলথ বুলেটিনে এ তথ্য জানান স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

তিনি জানান, সারাদেশে করোনা রোগীদের জন্য নির্ধারিত হাসপাতালগুলোতে সাধারণ শয্যার সংখ্যা ১৪ হাজার ৯৪৫টি। তাতে রোগী ভর্তি আছে চার হাজার ৩৬১ জন এবং শয্যা খালি আছে ১০ হাজার ৫৮৪টি। সারাদেশে আইসিইউ শয্যা ৩৯৪টি। তার মধ্যে রোগী ভর্তি আছে ২২৬টিতে এবং খালি আছে ১৬৮টি।

অর্থাৎ সাধারণ ও আইসিইউ মিলে রয়েছে মোট ১৫ হাজার ৩৩৯ শয্যা। তার মধ্যে ভর্তি আছেন চার হাজার ৫৮৭ জন রোগী। আর শয্যা ফাঁকা আছে ১০ হাজার ৭৫২টি।

নাসিমা সুলতানা আরও জানান, চট্টগ্রাম মহানগরীতে সাধারণ শয্যার সংখ্যা ৬৫৭টি। এই শয্যায় ভর্তি আছেন ৩১৩ জন এবং খালি আছে ৩৪৪টি। চট্টগ্রাম মহানগরীতে আইসিইউ শয্যার সংখ্যা ৩৯টি। তাতে ভর্তি আছেন ১৫ জন এবং খালি আছে ২৪টি।

অন্যদিকে, ঢাকা মহানগরীর করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে সাধারণ শয্যা সংখ্যা ছয় হাজার ৩০৫টি। তাতে ভর্তি আছেন দুই হাজার ১৯৯ জন এবং শয্যা খালি আছে চার হাজার ১০৬টি। অন্যদিকে ঢাকা মহানগরীতে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে আইসিইউ শয্যার সংখ্যা ১৪২টি। তাতে ভর্তি আছেন ১০৮ জন এবং খালি আছে ৩৪টি।

এমএহক

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ManaratResponsive

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন
ksrm