খাগড়াছড়ির রসালো মাল্টার বাজার সারাদেশে, পাইকারিতে কেজি ৯০ টাকা

0

সবুজ পাহাড়ে এখন মাল্টার মৌসুম শুরু হয়েছে। মিষ্টি মাল্টার শোভা চড়াচ্ছে খাগড়াছড়িতে। পাহাড়ি হাটবাজারে এখন মাল্টা আর মাল্টা। চাষীরা দাম বেশি পাওয়ায় খাগড়াছড়িতে প্রতি বছরই বাগান বাড়ছে। এই সময়ে ছোট-বড় গাছের সবুজ পাতার পাশে পরিপক্ক ফল ঝুলছে। বাগানে বাগানে চলছে ফল সংগ্রহ।

ইতিমধ্যে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পাঠানোর কাজও শুরু হয়েছে। স্থানীয় বাজারে এখন প্রতি কেজি মাল্টা ১০০ থেকে ১২০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। ব্যবসায়ীদের হাত ঘুরে খাগড়াছড়ির পুষ্টিকর সুমিষ্ট রসালো মাল্টা যাচ্ছে ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট, রাজশাহীসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে।

খাগড়াছড়ি কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ থেকে পাওয়া তথ্যমতে, ২০২০ সালে ৪২৩ হেক্টর উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ছিল। তবে এই বছর আরও বাড়বে।

s alam president – mobile

খাগড়াছড়ির রসালো মাল্টার বাজার সারাদেশে, পাইকারিতে কেজি ৯০ টাকা 1

খাগড়াছড়ি শহরের পানখাইপাড়া এলাকার মাল্টা চাষি মানু মারমা বলেন, ‘একশটা গাছে আমার ফলন ভালো হয়েছে। এই বাগানের ফল বিক্রি করে ছেলে-মেয়ের পড়াশোনা ও সংসার চলে।’

সদরের বড়পাড়ার মাল্টা চাষী অংগ্র মারমা বলেন, খাগড়াছড়ির মাল্টা জনপ্রিয়তা বাড়ছে। বাজারে মাল্টা ১০০ থেকে ১১০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি করছি। পাইকারি ৯০ টাকায় দিচ্ছি।

Yakub Group

খেজুরবাগান হর্টিকালচার সেন্টারের উপ-সহকারী কর্মকর্তা সুজন চাকমা বলেন, খাগড়াছড়ির মাল্টা জনপ্রিয় একটি ফসল। বারি-১ মাল্টা খাগড়াছড়ি পাহাড়ি কৃষি গবেষণাকেন্দ্র থেকে উদ্ভাবিত। সারাদেশব্যাপী জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। পার্বত্য অঞ্চলে কয়েকশ হেক্টর জমিতে চাষাবাদ হচ্ছে। অক্টোবরের মধ্যবর্তী সময়ে গাছ সংগ্রহ করার উপযোগী। প্রচুর বাগান বাড়ছে এবং ফলন বৃদ্ধি পাচ্ছে। পার্বত্য হর্টিকালচারের মাধ্যমে বিভিন্ন প্রকল্পের আওতায় বারি-১ মাল্টা কৃষকদের মাঝে চারা বিতরণ অব্যাহত আছে।

খাগড়াছড়ি পাহাড়ি কৃষি গবেষণাকেন্দ্রের মূখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মুন্সী রাশীদ আহমদ বলেন, আমাদের বারি-মাল্টা-১ কৃষি গবেষণা কর্তৃক উদ্ভাবিত। সারাদেশে ব্যাপক জনপ্রিয় এটি। সেই কারণে প্রতি বছর প্রচুর বাগান বাড়ছে। প্রচুর পরিমাণ উৎপাদন হয়ে সারাদেশ চলে যাচ্ছে পার্বত্য অঞ্চলের মাল্টা।

তিনি বলেন, খাগড়াছড়ির আবহাওয়া ও জলবায়ু ভালো বলে মাল্টা রসালো ও মিষ্টি। শরীরের জন্য অত্যন্ত পুষ্টিকর। প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন পাওয়া যায়।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!