ক্রিকেটকে বিদায় পেসার নাজমুলের

0

কোচ হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করেছেন বাংলাদেশের পেসার নাজমুল হোসেন। কিন্তু ক্রিকেটকে বিদায় না বলেই। সোমবারই তাই ঘোষণা দিয়েছিলেন, আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় বলবেন ক্রিকেটকে। মঙ্গলবার ছিল সেই দিন। অবসরের দিন ঘোষণা মানে একপ্রকার বিদায়ই নেওয়া। তারপরও তো কিছু বলার থাকে। আনুষ্ঠানিকতা বলে কিছু থাকে। তাই হয়তো মঙ্গলবারকে আলাদা করে বেছে নেওয়া।

ক্রিকেট থেকে বিদায় জানিয়ে রূপগঞ্জের এই পেস বোলিং কোচ জানান, ক্যারিয়ার নিয়ে তার কোন আক্ষেপ নেই। কোচিংয়ে ক্যারিয়ার শুরু করেছেন। খেলা ছাড়ার কথাটা তাই সবাইকে জানালেন তিনি।

নাজমুল ২০০৪ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত জাতীয় দলে খেলেছেন। এই সময়ে দুই টেস্ট, ৩৮ ওয়ানডে আর চারটি টি২০ ম্যাচ খেলেছেন সিলেটের এই পেসার। তবে বাংলাদেশের ক্রিকেটের অনেক প্রথমের সঙ্গে জড়িত তিনি। কেউ যদি বাংলাদেশের ক্রিকেটের স্মৃতিরোমন্থন করে ভারত, শ্রীলংকা কিংবা অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বাংলাদেশের প্রথম জয়ের ভিডিওটা দেখেন। তবে নাজমুল হোসেনকে সেখানে দেখা যাবে। কারণ ওই সকল জয়ের ম্যাচে খেলেছেন তিনি।

শ্রীলংকার বিপক্ষে ঘরের মাঠে ত্রিদেশীয় সিরিজ জয়ের খুব কাছাকাছি ছিল বাংলাদেশ। প্রথম শিরোপা জয়ের তীরে গিয়ে সেবার হেরেছিল বাংলাদেশ। সাকিব-মুশফিকরা সেই ম্যাচেই হারের জ্বালায় পুড়েছিলেন। ওই ম্যাচে শুরুতে দুর্দান্ত বোলিং করেন নাজমুল হোসেন।

নাজমুলের ক্যারিয়ার মূলত চোটে পড়ে শেষ হয়ে গেছে। তাপস বৈশ্য, সৈয়দ রাসেল ও শাহাদাতদের সময়ের পেসার তিনি। আকরাম খান, হাবিবুল বাশারদের সঙ্গে খেলেছেন। আবার এই প্রজন্মের তামিম, সাকিবদের পেয়েছেন। নাজমুল তাই বাংলাদেশের ক্রিকেটের দুই প্রজন্মের মেলবন্ধন। এবার তৃতীয় প্রজন্মের পেসারদের গুরু হওয়ার কাজে নেমে পড়েছেন তিনি।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন