কোরবানির হাটে গরু-মানুষে বেদনাবিধূর বিদায়!

0

সকল প্রাণীর মাঝে প্রেম-ভালবাসা বিরাজমান। মানুষ যেমন মানুষকে ভালবাসে, তেমনি প্রাণীরাও প্রাণীদের ভালবাসে। আবার কিছু কিছু ভালবাসা হয় মানুষ ও প্রাণীর মাঝে। এতে মানুষ ভালবেসেছে প্রাণীকে। আবার কোনো কোনো সময় প্রাণী ভালবেসেছে মানুষকে। এই ভালবাসায় মানুষের মতো স্মৃতিশক্তি হয়তো প্রাণীদের নেই। তাই তারা স্মরণে রাখতে পারে না কারও উপকার কিংবা ভালবাসার কথা। তবে কিছু কিছু প্রাণী, মানুষের ভালবাসার প্রতিদান ঠিকই দেয়।

পোষা গরু ও তার পালনকর্তার মধ্যকার ভালোবাসা হঠাৎ হঠাৎ চোখে আটকে যায় গরুর হাটে গেলে। মায়ার বন্ধন ছেড়ে গরুটি একটু পরেই অন্যের হবে। আর একদিন পরই যাবে পৃথিবীর মায়া ছেড়ে, কোরবানির পশু হয়ে। শেষবারের মতো বিদায় দিতে আবেগে ভেসে যাচ্ছে সেই মেয়েটি, যে কিনা প্রতিদিন গরুটিকে খাওয়াতো নিজ হাতে। সেই খামারি, গরুটির যত্নআত্তিতে যার দিনের প্রায় পুরোটাই কাটতো, কোরবানির হাটে এই বিদায়বেলায় মন তার ভেঙেচুরে তো যাবেই।

আর একদিন পরই যাবে পৃথিবীর মায়া ছেড়ে, কোরবানির পশু হয়ে।
আর একদিন পরই যাবে পৃথিবীর মায়া ছেড়ে, কোরবানির পশু হয়ে।

পেঙ্গুইন আর মানুষের ভালোবাসার অসাধারণ এক দৃষ্টান্তে হৈচৈ পড়ে গিয়েছিল বিশ্বজুড়ে। একটি পেঙ্গুইনের প্রাণ বাঁচিয়েছিলেন ব্রাজিলের এক জেলে। এখন প্রতিবছর সাগরে থেকে এসে প্রাণরক্ষাকারীর সঙ্গে দেখা করে যায় সেই পেঙ্গুইন, ভালোবাসায় সিক্ত হয় দু’জন।

সাগরের জলে ভাসমান তেলে আটকে মরতে বসেছিল জিনজিং। দেখে বড় মায়া হয় ডি. সুজার। কোলে করে নিয়ে যান ঘরে। সেবা দিয়ে বাঁচিয়েও তোলেন। বেঁচে উঠে কিন্তু সাগরে ফেরার জন্য অস্থির হয়ে ওঠেনি জিনজিং। গতিবিধি দেখে ডি. সুজার মনে হয়েছিল, সাউথ অ্যামেরিকান ম্যাগেলানিক পেঙ্গুইনটি বুঝি সাগরে আর ফিরবেই না। কিন্তু একদিন ঠিকই সাগরে উধাও হলো জিনজিং। ডি. সুজা তো ধরে নিয়েছিলেন, জিনজিং এবার তাকে ভুলেই যাবে। ৭১ বছর বয়সী ডি. সুুজার এই ভুলও ভাঙে এক বছর না পেরোতেই। প্রাণবাঁচানো প্রিয় মানুষটির কাছে একদিন ঠিকই ফিরে এলো জিনজিং। সেই থেকে প্রতিবছরই পাঁচ হাজার মাইল সাগর পাড়ি দিয়ে চলছে বন্ধুর নিকট আসা-যাওয়া। প্রতিবছর একবার ডি. সুজার বাড়িতে আসে জিনজিং। এসেই উঠে পড়ে কোলে। খিদে পেলে হা করে থাকে। মুখে তখন একটা একটা করে সার্ডিন মাছ তুলে দেন ডি. সুজা। গোসলের সময় আদুরে সন্তানের মতো চোখ বুজে থাকে। ডি. সুজা যেন তার পরম বন্ধু বা পিতা।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন