কৃষক লীগ নেতাকে গুলি, ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা চট্টগ্রামে

চট্টগ্রামের বাঁশখালীর সাধনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কেএম সালাহ উদ্দীন কামালসহ ১৮ জনের বিরুদ্ধে কৃষক লীগ নেতাকে গুলি ও হামলার ঘটনায় মামলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৬ মে) বাঁশখালী থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, উপজেলা কৃষক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ইলিয়াছ (৪০) ও তার বাবা মোহাম্মদ ইদ্রিসের (৬৫) ওপর চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে গত ৯ মে বিকাল সাড়ে ৫টায় মিছিল সহকারে অজ্ঞাত ৬০-৭০ জন লোক প্রকাশ্যে গুলি, হামলা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে লুটপাটের ঘটনা ঘটিয়েছে। এতে গুরুতর আহত মো. ইলিয়াছ এখন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। তার বাবার মাধ্যমে এজাহার পাঠালে তদন্ত সাপেক্ষে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সাধনপুর ইউপি চেয়ারম্যান কেএম সালাহ উদ্দীন কামাল দেশের আলোচিত ৩টি মামলার গ্রেপ্তারি পরোয়ানাভুক্ত বিদেশে পলাতক জঙ্গি কেএম জিয়া উদ্দিন ফাহাদের ভাই।
মূলত ২০১৫ সালে মিডিয়ায় জঙ্গির বিরুদ্ধে সাক্ষাৎকার দেওয়ার কারণেই হামলার শিকার হন মো. ইলিয়াছ।

হামলার প্রতিবাদে ১২ মে রাত ৮টায় বাণীগ্রাম নতুন বাজারে বাঁশখালী উপজেলা কৃষক লীগের উদ্যোগে বিক্ষোভ সমাবেশ হয়। উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি ভিপি মো. ইলিয়াস হোসেনের সভাপতিত্বে বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউল করিম আতিকসহ আরও ২৬ জন নেতা।

হামলার শিকার কৃষক লীগ নেতা মো. ইলিয়াছের বাবা মো. ইদ্রিছ বলেন, আমিও ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে হামলায় আহত হয়েছিলাম। বর্তমানে কিছুটা সুস্থ হয়ে থানায় এজাহার দিলে মামলা হয়েছে।

বাঁশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘ভুক্তভোগীরা সাধনপুর ইউপি চেয়ারম্যানকে ১ নম্বর আসামি হিসেবে এজাহারে দিয়েছে। ওই মামলায় তার আরও ১৮ এজাহারনামীয় এবং অজ্ঞাত ৫০-৬০ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।’

ডিজে

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!