কালুরঘাট সেতুর টোল আদায়ের দরপত্র কার্যক্রমে স্থগিতাদেশ

রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের কালুরঘাট সেতুর টোল আদায়ের টেন্ডার কার্যক্রম হাইকোর্টের নির্দেশে ৬ মাস স্থগিত করা হয়েছে।

এর আগে ৬ ফ্রেব্রয়ারী রেলওয়ে পূর্বাঞ্চল ভূসম্পদ দপ্তর টোল আদায়ের দরপত্র বিক্রি ও ৮ ফ্রেব্রয়ারী এ দরপত্র দাখিলের তারিখ নির্ধারণ করে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছিল।

গত বৃহস্পতিবার (২ ফ্রেব্রুয়ারি) মের্সাস এনএ এন্টারপ্রাইজ হাইকোর্টে রীট পিটিশন দায়ের করলে আদালত ৬ মাসের জন্য দরপত্র কার্যক্রম স্থগিত করে।

বিচারপতি জাফর আহমেদ ও বশির উল্লাহর দ্বৈত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

এনএ এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী আইয়ুব আলী এ রীট পিটিশন দায়ের করেন।

জানা যায়, কালুরঘাট রেল সেতুর উপর সড়ক, যান চলাচল টোল আদায়ে ২০২০ সালের ২৪ মার্চ
এনএ এন্টারপ্রাইজকে কার্যাদেশ প্রদান কর রেলওয়ে।
২০২০ সালের ১১ নভেম্বর রেলওয়ের সঙ্গে এ চুক্তি স্বাক্ষর হয় প্রতিষ্ঠানটির।

পরবর্তীতে চুক্তির মেয়াদ বৃদ্ধির আবেদনের প্রেক্ষিতে ২ বছর চুক্তি মেয়াদ বৃদ্ধি করা হয়। চলতি বছর ২৪ মার্চ চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা। ফলে ভূসম্পত্তি দপ্তর নতুন দরপত্র আহবান করে পত্রিকায় দরপত্র বিক্রির ঘোষণা দেয়।

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সত্বাধিকারী আইয়ূব আলী বলেন, ‘লকডাউনে ১৪৮ দিন সেতুর উপর তেমন যানবাহন চলাচল করেনি। এছাড়া নিজ খরচে সেতুর দুই পাশে স্ক্যাল মেশিন ও সিসি ক্যামেরা স্থাপন করি আমরা। এতে প্রায় ৫০ লাখ টাকা ব্যয় হয়। এরই প্রেক্ষিতে আরও এক বছর সময় বৃদ্ধির আবেদন করলে রেলওয়ের ভূসম্পত্তি বিভাগ তা বিবেচনা না করে দরপত্র আহবান করে। আমরা আদালতের দারস্থ হই। আদালত ৬ মাস দরপত্র কার্যক্রমে স্থগিতাদেশ দেন।’

এমএফও/জেএস

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!