কলেজছাত্রীসহ চট্টগ্রামের এএসপি আটক, গভীর রাতে বিয়ে

0

কলেজছাত্রীর সঙ্গে অনৈতিক কাজে লিপ্ত থাকার অভিযোগে কামরুল হাসান নামের এক পুলিশ কর্মকর্তাকে আটক করেছে রংপুর কোতোয়ালী থানা পুলিশ। মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) রাতে বনানীপাড়ার ভাড়া বাসা থেকে তাদের আটক করা হয়। এরপর গভীর রাতে তাদের ৫১ লাখ টাকা দেনমোহরানায় বিয়ে হয়। বিয়ের পর পুলিশ তাদের ছেড়ে দেয়। কামরুল হাসান চট্টগ্রাম আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি)।

রংপুর কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কমকর্তা আব্দুল রশিদ বলেন, ‌‘রংপুর জেলা মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদিকার অভিযোগের ভিত্তিতে মঙ্গলবার গভীর রাতে জামরুল হাসান নামের চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের এক সহকারী পুলিশ সুপারকে কলেজছাত্রীসহ আটক করা হয়েছে। স্বামী-স্ত্রী পরিচয় নিশ্চিত হয়ে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

জানা গেছে, রোকসানা পারভীন কারমাইকেল কলেজ থেকে ২০১৫ সালে ইংরেজি বিভাগ থেকে পাস করে। গতবছর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে কিশোরগঞ্জের ছেলে কামরুল হাসানের সাথে। পুলিশ কর্মকর্তা কামরুল হাসান বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে পারভীনের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে গড়ে তোলে। পরে পারভীন বিয়ের কথা বললে নানান কৌশলে এড়িয়ে যেতো কামরুল হাসান। এর পরিপ্রেক্ষিতে রংপুর জেলা মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদিকার কাছে লেখিত অভিযোগ করে পারভীন।

রংপুর জেলা মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদিকা বলেন, ‘মঙ্গলবার কামরুল হাসান ১২ দিনের ছুটি কাটাতে বনানীপাড়ায় পারভীনের বাসায় আসে। পারভীন তাকে বিয়ে করতে বললে ৬ মাস পরে বিয়ে করবেন বলে জানায় কামরুল। পারভীন কোনো উপায় না দেখে কামরুলকে বাসার ভেতরে রেখে দরজায় তালা লাগিয়ে রংপুর জেলা মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদিকাকে খরব দেয়। পরে কোতোয়ালী থানা অফিসার ইনচার্জ আব্দুল রশিদের সহযোগিতায় কামরুলকে থানায় নিয়ে আসা হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘উভয় পরিবারের সম্মতিক্রমে ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের মধ্যস্থতায় গভীর রাতে কাজী ডেকে ৫১ লাখ দেনমোহরে বিয়ের কাজ সম্পূর্ণ হয়। তবে রেজিস্ট্রার খাতায় বিয়ের তারিখ ২১ অক্টোবর লেখা হয়।

আরএ/সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন