কর্মবিরতিতে চুয়েটে অচলাবস্থা, সেশনজটের শঙ্কায় শিক্ষার্থীরা

পেনশনের ‘প্রত্যয় স্কিম’ প্রত্যাহারের দাবিতে শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সর্বাত্মক কর্মবিরতিতে অচল হয়ে রয়েছে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট)। বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল দাপ্তরিক ও একাডেমিক কাজ স্থবির হয়ে পড়ায় সেশনজটের শঙ্কায় রয়েছে শিক্ষার্থীরা।

সোমবার (৮ জুলাই) অষ্টম দিনের মতো সর্বাত্মক কর্মবিরতি পালন করেছে শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

কর্মবিরতির ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ব্যাচের চলমান পরীক্ষাগুলোও স্থগিত রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী নাজমুস সাকিব বলেন, আমাদের আর একটি পরীক্ষা বাকি ছিল, সেটি আটকে আছে। এ অবস্থায় আমরা দোটানার মধ্যে আছি। শ্রীঘ্রই এই অবস্থার অবসান হোক।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী গোলাম সারোয়ার বলেন, ‘হলের ডাইনিং বন্ধ থাকায় আমাদের খাবারের জন্য বাইরের হোটেল ও ক্যান্টিনে যেতে হচ্ছে। সেগুলো তুলনামূলক নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর। ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ থাকায় আমরা সেশনজটে পড়ছি। অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতোমধ্যে অনেক পিছিয়ে আছি।’

চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী সৈয়দ শোয়েবুল ইসলাম বলেন, ‘এমনিতেই কোভিডের কারণে আমরা অনেক পিছিয়ে। আমাদের ব্যাচের অনেকেই তাদের ডিগ্রি কমপ্লিট করে ফেলেছে, এদিকে আমরা এখনও চতুর্থ বর্ষে উঠেছি মাত্র। সেশন জটের কারণে চাকরিক্ষেত্রেও ভোগান্তি পোহাতে হবে—এ ভয়ে আছি।’

কর্মবিরতির কারণে ভোগান্তিতে পড়েছেন সমাপনী বর্ষের (১৮ ব্যাচ) শিক্ষার্থীরাও। একাডেমিক সকল কার্যক্রম শেষ হলেও সনদ পেতে দেরি হচ্ছে তাদের। এতে তারা চাকরি বা উচ্চশিক্ষার জন্য আবেদন করতে পারছেন না। এ বিষয়ে সমাপনী বর্ষের তাসনিয়া রহমান প্রমি বলেন, ‘কর্মবিরতির জন্য ১১ জুলাই ফাইনাল রেজাল্ট দিবে কিনা, তা নিয়ে সন্দিহান। সেই সঙ্গে ক্লিয়ারেন্সের কাজও করতে পারছি না। সঠিক সময়ে সার্টিফিকেটও পাবো না। ফাইনাল রেজাল্ট ছাড়া মাস্টার্স কিংবা জবে এপ্লাই করতেও সমস্যা হচ্ছে।’

এদিকে সমন্বিত ইঞ্জিনিয়ারিং বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুষ্ঠিতব্য ২০২৩-২৪ সেশনের নতুন শিক্ষার্থীদের শেষ ধাপের ভর্তি কার্যক্রম ৩-৪ জুলাই হওয়ার কথা থাকলেও তা পিছিয়ে ১৪-১৫ জুলাই নেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, অর্থ মন্ত্রণালয় কর্তৃক জারিকৃত এই ‘এক তরফা’ সিদ্ধান্ত মেনে নিতে রাজি না শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। দাবি মেনে না নেওয়া পর্যন্ত এভাবেই কর্মবিরতি চলতে থাকবে বলে জানায় তারা।

ডিজে

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!