s alam cement
আক্রান্ত
১০০৮০১
সুস্থ
৭৯৬৩৫
মৃত্যু
১২৬৮

করোনার নতুন রেকর্ড চট্টগ্রামে, ১৮ মৃত্যুর পাশে ২৪ ঘন্টায় শনাক্ত ১৩১০

0

শনাক্ত ও মৃত্যু— দুদিক থেকেই নতুন রেকর্ড গড়ল চট্টগ্রাম। এই প্রথমবারের মতো মাত্র ২৪ ঘন্টায় চট্টগ্রামে করোনা শনাক্ত হল ১ হাজার ৩১০ জনের শরীরে। এর আগে সর্বশেষ গত জুলাই ১০০৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছিল। একদিনে হাজারের ওপর করোনা শনাক্তের ঘটনা এখন পর্যন্ত এই দুটিই। অন্যদিকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘন্টায় মারা গেলেন ১৮ জন। এটিও চট্টগ্রামের জন্য নতুন রেকর্ড। ১৮ মৃত্যুর ১১ জনই উপজেলার।

মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) পর্যন্ত সবশেষ ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৩১০ জনের নমুনায় করোনাভাইরাস শনাক্ত হলে চট্টগ্রামে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭৭ হাজার ৫২১ জনে। আর এই একই সময়ে মৃত্যু হয়েছে ১৮ জনের— যাদের ৭ জন চট্টগ্রাম নগরের এবং বাকি ১১ জনই উপজেলার।

মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) মধ্যরাতে চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন কার্যালয়ের রিপোর্টে বলা হয়েছে, নগরীর নয়টি ল্যাব ও এন্টিজেন টেস্টে গত ২৪ ঘন্টায় ৩ হাজার ৩৮৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হলে নতুন করে ১ হাজার ৩১০ জন করোনা পজিটিভ হিসেবে শনাক্ত হন।

নতুন শনাক্তদের মধ্যে চট্টগ্রাম মহানগরে রয়েছে ৮৩৩ জন এবং ১৪ উপজেলায় ৪৭৭ জন। উপজেলায় আক্রান্তদের মধ্যে আনোয়ারায় সর্বোচ্চ ৬৭ জন, বোয়ালখালীতে ৬৫ জন, হাটহাজারীতে ৫৯ জন, পটিয়ায় ৫৭ জন, রাউজানে ৫৪ জন, রাঙ্গুনিয়ায় ৪৪ জন, ফটিকছড়িতে ৩০ জন, সীতাকুণ্ডে ২৩ জন, সন্দ্বীপে ২৩ জন, বাঁশখালীতে ২১ জন, সাতকানিয়ায় ১৮ জন, মিরসরাইয়ে ১২ জন, লোহাগাড়ায় ২ জন, চন্দনাইশ ২ জন, ।

চট্টগ্রাম জেলায় করোনাভাইরাসে মোট সংক্রমিতের সংখ্যা এখন ৭৭ হাজার ৫২১ জন। এর মধ্যে চট্টগ্রাম মহানগরের বাসিন্দা ৫৮ হাজার ৩২৩ জন এবং ১৪ উপজেলার ১৯ হাজার ১৯৮ জন।

গত ২৪ ঘন্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চট্টগ্রাম মহানগরে আরও ১৮ জনের মৃত্যু হল— যা চট্টগ্রামে এ যাবতকালের সর্বোচ্চসংখ্যক মৃত্যু। এদিন উপজেলায় মারা গেলেন ১১ জন। সবমিলিয়ে চট্টগ্রামে করোনায় এ পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯১৫ জনে। এর মধ্যে চট্টগ্রাম মহানগরের ৫৫৪ জন ও উপজেলার ৩৬১ জন।

Din Mohammed Convention Hall

ল্যাবভিত্তিক রিপোর্টে দেখা যায়, ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল এন্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস ল্যাবে (বিআইটিআইডি) ৫০৬ জনের নমুনা পরীক্ষায় চট্টগ্রাম নগরের ১৩২ ও উপজেলার ৪৩ জন জীবাণুবাহক পাওয়া গেছে। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ল্যাবে ৩০৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হলে নগরের ১১৩ জন ও উপজেলার ২১ জনের শরীরে জীবাণুর উপস্থিতি চিহ্নিত হয়। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ২২৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় চট্টগ্রাম নগরের ৯৪ ও উপজেলার ২৯ জন জীবাণুবাহক পাওয়া গেছে। চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও অ্যানিমেল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ৩৪৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হলে নগরের ৭৪ জন ও উপজেলার ৭৬ জনের শরীরে জীবাণুর উপস্থিতি চিহ্নিত হয়।

অন্যদিকে ১ হাজার ২৯০টি এন্টিজেন টেস্টে মহানগরের ১৮৭ জন ও উপজেলার ২৪২ জন মিলিয়ে মোট ৪২৯ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়।

এদিকে বেসরকারি ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরির মধ্যে আগ্রাবাদের মা ও শিশু হাসপাতালে ৬৩টি নমুনায় চট্টগ্রাম নগরের ২৫ ও উপজেলার ৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। বেসরকারি শেভরন ল্যাবে ১৪১টি নমুনার মধ্যে উপজেলার ৪৭টিসহ ৬৮টি নমুনার ফলাফল পজিটিভ আসে।

এছাড়া বেসরকারি মেডিকেল সেন্টার হাসপাতালে ৪৪টি নমুনায় চট্টগ্রাম নগরের ২৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। ইপিক হেলথ কেয়ারে ৪৬টি নমুনায় চট্টগ্রাম নগরের ২৮ ও উপজেলার ২ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। ইমপেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ৪৫৬টি নমুনায় চট্টগ্রাম নগরের ১৬৪ ও উপজেলার ১৩ জনের শরীরে করোনা চিহ্নিত হয়েছে।

এছাড়া কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ল্যাবে ১২টি নমুনার মধ্যে উপজেলার ৩টি নমুনার ফলাফল পজিটিভ এসেছে।

সিপি

ManaratResponsive

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm