করোনার ধাক্কায় হঠাৎ কমেছে স্বর্ণের দাম

0

দেশের বাজারে হঠাৎ কমেছে স্বর্ণের দাম। তিন ধরনের স্বর্ণের (২২,২১,১৮) ক্যারেট ও সনাতন পদ্ধতির স্বর্ণের ভরিতে দাম কমেছে ১ হাজার ১৬৬ দশমিক ৪০ টাকা। যদিও চলতি বছরের ১৮ ফেব্রুয়ারিতে বেড়েছিল ধাতুটির দাম।

বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) থেকে নতুন দামে বিক্রি হবে অলংকার তৈরির এই ধাতু। এর আগে বুধবার (১৮ মার্চ) বাংলাদেশ জুয়েলারি সমিতির (বাজুস) প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে স্বর্ণের দাম কমার তথ্য পাওয়া যায়।

বিজ্ঞপ্তিতে তারা জানান, বৈশ্বিক বাজারের সাথে সমন্বয় রেখেই নির্ধারণ করা হয়েছে এই মূল্য। তবে স্থানীয় স্বর্ণের ব্যবসায়ীরা বলছেন, করোনার কারণে বিশ্বব্যাপী চলছে আর্থিক মন্দা। যার প্রভাবে নেমেছে স্বর্ণের দাম। ব্যবসায়ী সহদেব ধর চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন ‘চলতি বছর দুই দফা দাম বাড়ার পর অনেকটাই কমে গিয়েছিল বেচাকেনা। তার সঙ্গে এখন করোনার প্রভাব পড়েছে বাজারে।’

বাজুস নির্ধারিত নতুন মূল্য তালিকায় দেখা গেছে, ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরির দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৬০ হাজার ৩৬১ দশমিক ২০ টাকা। বুধবার পর্যন্ত এই মানের স্বর্ণের দাম রয়েছে ৬১ হাজার ৫২৭ দশমিক ৬০ টাকা।

২১ ক্যারেটের প্রতি ভরির দাম ধরা হয়েছে ৫৮ হাজার ২৮ দশমিক ৪০ টাকা। বর্তমানে বিক্রি হচ্ছে ৫৯ হাজার ১৯৪ দশমিক ৮০ টাকা।

একইভাবে ১৮ ক্যারেটের ভরির দাম পড়বে ৫৩ হাজার ১২ দশমিক ৮৮ টাকা। এখন দাম রয়েছে ৫৪ হাজার ১৭৯ দশমিক ২৮ টাকা।

সনাতন পদ্ধতির স্বর্ণে প্রতি ভরির দাম ধরা হয়েছে ৪০ হাজার ২৪০ দশমিক ৮০ টাকা। বুধবার পর্যন্ত দাম রয়েছে ৪১ হাজার ৪০৭ দশমিক ২০ টাকা। অর্থাৎ ৪ ক্যাটাগরিতেই প্রতি ভরি স্বর্ণের দাম কমানো হয়েছে ১ হাজার ১৬৬ দশমিক ৪০ টাকা। তবে অপরিবর্তিত রয়েছে ২১ ক্যারেট ক্যাডমিয়াম রূপার দাম। প্রতি ভরি বিক্রি হচ্ছে ৯৩৩ টাকায়।

জুয়েলারি সমিতির সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার আগরওয়ালা বলেন, ‘আর্ন্তজাতিক বাজারের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে দেশের বাজারে স্বর্ণের দাম কমানো হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত জুয়েলারি মালিকরা নতুন দামে স্বর্ণ বিক্রি করবেন।

এএ/এসএস

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন