আক্রান্ত
১১৭৬৪
সুস্থ
১৪১৪
মৃত্যু
২১৬

কমবে ছুটি—বাড়বে শ্রেণি ঘণ্টা, শিক্ষাবর্ষ বাড়তে পারে মার্চ পর্যন্ত

2
high flow nasal cannula – mobile

এমনিতে মাধ্যমিক স্তর পর্যন্ত জানুয়ারিতে শুরু হয়ে ডিসেম্বরেই শেষ হয়ে যায় শিক্ষাবর্ষ। কিন্তু দেশে মার্চের ৮ তারিখ করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর এপ্রিলের শুরুর দিকে বন্ধ করে দেয়া হয় সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এরই মাঝে বন্ধ বাড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে আগস্টের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত। সেই হিসেবে বন্ধ আর না বাড়লেও প্রায় চার মাস নষ্ট হয়ে যাবে চলতি শিক্ষাবর্ষের। দেশের শিক্ষার্থীদের এই অনিশ্চিত অবস্থায় শিক্ষামন্ত্রী শোনালেন সমাধানের পথ। শিক্ষাবর্ষের সাধারণ ছুটি কমিয়ে শ্রেণি ঘণ্টা বাড়ানোর পরিকল্পনা হাতে নিয়ে চলতি শিক্ষাবর্ষ আগামী মার্চ মাস পর্যন্ত বাড়ানো হতে পারে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

শনিবার এডুকেশন রিপোর্টার অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ (ইরাব) আয়োজিত এক অনলাইন সেমিনারে প্রধান অতিধির বক্তব্যে এসব কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী। তিনি বলেন, বর্তমান করোনাকালীন সংকট পুষিয়ে নিতে চলতি শিক্ষাবর্ষ আগামী মার্চ পর্যন্ত বাড়ানো হতে পারে। তবে এ ক্ষেত্রে বয়স ও শ্রেণি অনুযায়ী শিক্ষার্থীর জ্ঞানার্জন ও দক্ষতা অর্জনের দিকটি গুরুত্ব দেয়া হবে। কোন অবস্থাতেই এ দুটি আপস করা হবে না, যতটুকু না পড়ালে পরবর্তী ক্লাসে ওঠা সম্ভব না হয় সেটিকে গুরুত্ব দেয়া হবে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থী ও তাদের পরিবারের সুরক্ষার কথা চিন্তা করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হবে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে স্কুল-কলেজ খোলা হবে। তবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় যে ক্ষতি হবে তা পুষিয়ে নিতে চলতি শিক্ষাবর্ষ আগামী মার্চ পর্যন্ত বাড়ানো হতে পারে। শিক্ষাবর্ষের ছুটি কমিয়ে শ্রেণি ঘণ্টা বাড়ানোর পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে।

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, প্রতিবছর সিলেবাসে নানা ধরনের ছুটি থাকে, সেসব ছুটি বাতিল করার পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। সংকট এড়াতে চলতি বছর ও আগামী শিক্ষাবর্ষের সিলেবাস থেকে ছুটি কমিয়ে ক্লাস-পরীক্ষা নিয়ে শিক্ষা কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখা হবে।

শুধু পরীক্ষার জন্য সিলেবাস তৈরি করা হয় না, পরবর্তী ক্লাসে ওঠার জন্য তার জ্ঞানার্জনের জন্য যা শেখা প্রয়োজন তা শেখানো হয়। ধারাবাহিক মূল্যায়নের জন্য বছর শেষে পরীক্ষা আয়োজন করা হয়ে থাকে-যোগ করেন শিক্ষামন্ত্রী।

এমএহক

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ManaratResponsive
2 মন্তব্য
  1. Aktar Hossain বলেছেন

    করোনা পরবর্তী প্রাইমরি স্কুলেট চাপ সামলানোর জন্য প্যানেল করে অপেক্ষমান তালিকা থেকে শিক্ষক নিয়োগ দেয়ার কোনো বিকল্প নেই।

  2. Aktar Hossain বলেছেন

    করোনা পরবর্তী প্রাইমারি স্কুলের চাপ সামলানোর জন্য প্যানেল করে অপেক্ষমান তালিকা থেকে শিক্ষক নিয়োগ দেয়ার কোনো বিকল্প নেই।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন
ksrm