কনটেইনারের ভেতরে কলম্বিয়ার অজগর এসেছিল চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে

0

চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে কলম্বিয়া থেকে আসা একটি কনটেইনারের ভেতরে ছিল অজগর সাপ। সাত মাস বয়সী সাপটি চার মাস ধরে আটকে ছিল ওই কনটেইনারে। বন্দর থেকে খালাস নিয়ে ঢাকার একটি ইস্পাত কারখানায় কনটেইনারটি খোলার পর ওই অজগরের অস্তিত্ব আবিষ্কার হয়।

রোববার (২১ জুন) দুপুরে টঙ্গীর আনোয়ার ইস্পাত কারখানা চত্বরের একটি কনটেইনার থেকে সাপটি উদ্ধার করেছে গাজীপুর বন্যপ্রাণী অপরাধ দমন ইউনিট।

বোয়া কনস্ট্রিক্টর (Boa Constrictor) জাতের এই অজগর সাপটি লম্বায় প্রায় ৬ ফুট। সাপটির ওজন চার কেজি। বয়স প্রায় সাত মাস। কনটেইনারের ভেতরে আটকে থাকায় সাপটি তিন-চার মাস না খেয়ে থাকায় বেশ দুর্বল হয়ে পড়েছে। দীর্ঘদিন ধরে অনাহারী থাকায় সাপটি নড়াচড়ার শক্তিও হারিয়ে ফেলেছে। শরীরে রয়েছে আঘাতের চিহ্ন।

অজগরটি উদ্ধারের পর ওইদিন বিকেলেই সেটি গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তবে অসুস্থ হয়ে পড়ায় অজগরটিকে পার্কের ভেতরে বর্তমানে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

আনোয়ার ইস্পাত কারখানার ম্যানেজার (এডমিন) মো. মিজানুর রহমান বলেন, চার মাস আগে এলসির মাধ্যমে কলম্বিয়া থেকে রড তৈরির কাঁচামাল আমদানি করা হয়। কলম্বিয়া থেকে কনটেইনারে আমদানি করা ইস্পাতের কাঁচামাল কারখানা পর্যন্ত আসতে প্রায় চার মাস সময় লাগে। শনিবার (২০ জুন) ওই কনটেইনারটি আনলোড করতে গেলে সাপটি নজরে আসে।

Yakub Group

কলম্বিয়ার যে অঞ্চল থেকে অপরিশোধিত লোহা বাংলাদেশে আনা হয়েছে, সেখান থেকে কোনোভাবে অজগরটি দেশে এসেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ksrm