কক্সবাজার আদালতের মালখানায় লুটের চেষ্টা

কক্সবাজারে আদালতের মালখানায় লুটের অপচেষ্টা চালানো হয়েছে। ভেঙে ফেলা হয়েছে দেয়ালের কিছু ইট। পাশে থাকা সিসিটিভি ক্যামেরার ঘুরিয়ে রাখা হয়।

তবে মালখানা থেকে কিছু লুট হয়েছে কি-না, তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। পুলিশ বলছে, সব গুরুত্বপূর্ণ মালামাল অক্ষত রয়েছে।

মঙ্গলবার (৪ জুন) সকাল থেকে আদালত প্রাঙ্গণে আসা লোকজন ভাঙা দেয়াল দেখতে পান। তখন থেকে আদালতপাড়ায় সৃষ্টি হয় চাঞ্চল্য।

ঘটনার দিন বিকালে কক্সবাজারের পুলিশ সুপার মাহফুজুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিকুল ইসলাম ও মালখানার ইনচার্জসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা মালখানা পরিদর্শন করেন।

এসময় পুলিশ সুপার মাহফুজুল ইসলাম বলেন, মালখানায় বাইরের দেয়াল ভেঙে ছিদ্র করা হয়েছে। ছিদ্রটি ছোট। সেখানে মানুষ প্রবেশ করতে পারবে না। তবে মালখানার গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র, টাকা-পয়সা এবং মালামাল অক্ষত রয়েছে।

কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের কয়েকজন আইনজীবী বলেন, আমরা আদালত চলাকালীন মালখানার দেয়ালে একটি ছিদ্র দেখেছি। ছিদ্রটি মানুষ ঢোকার মতো বড় না। তারপরও সন্দেহজনক। হয়তো মামলার জব্দকৃত গুরুত্বপূর্ণ মালামাল লুট করার বড় কোনো পরিকল্পনা ছিল। যদি গুরুত্বপূর্ণ কোনো কিছু নিয়ে যায়, তাহলে মামলার জন্য খুবই ক্ষতি হবে। গুরুত্বপূর্ণ জায়গা হিসেবে এই এলাকার নিরাপত্তা জোরদার করা উচিত।

কক্সবাজার জেলার মামলা সংক্রান্ত সমস্ত জব্দকৃত আলামত মালখানায় রাখা হয়। সেখানে টাকা-পয়সা, অস্ত্র, চোরাই মাল, স্বর্ণালঙ্কারের মতো গুরুত্বপূর্ণ জিনিসপত্র জমা রাখা হয় ৷

ডিজে

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!