ওসি-কাউন্সিলরের নামে দাওয়াতপত্র ছেপে চাঁদাবাজি, গ্রেপ্তার ২

0

চাঁদাবাজির অভিনব কৌশলের অংশ হিসেবে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ আয়োজনে দাওয়াতপত্র ছাপে তারা। দাওয়াতপত্রে থানার ওসি এবং স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলরের নাম ছেপে ডোনেশনের নামে ৩০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে নগরীর বাটালি রোডের ব্যবসায়ী মতুর্জা জাকির হোসেনের কাছে।

ব্যবসায়ী জাকির হোসেন অভিযোগ করলে শনিবার (১০ আগস্ট) দুপুরে কোতোয়ালী থানা পুলিশ কার্ডসহ হেদায়েত উল্ল্যাহ টুটুল ও মো. জাবেদ নামের দুজনকে গ্রেপ্তার করে।

কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মহসিন চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, ‘চাঁদা দাবির অভিযোগে বাটালী রোড থেকে দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আমি ও স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলরের নামে দাওয়াতপত্র ছেপে তারা চাঁদা দাবি করছিল। অথচ যে খেলার আয়োজন নিয়ে তারা দাওয়াতপত্র ছেপেছে তার ব্যাপারে আমার সাথে আলাপই করেনি। এই চক্রের অপর সদস্যদের আমরা গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছি।’

প্রীতি ফুটবল ম্যাচ আয়োজনে দাওয়াতপত্র
প্রীতি ফুটবল ম্যাচ আয়োজনে দাওয়াতপত্র

দাওয়াতপত্রে লেখা ছিল, ‘তৃতীয়বারের মতো ইসমাইল স্মৃতি সংসদের এ প্রীতি ফুটবল ম্যাচ ও পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। রেলওয়ে স্কুল মাঠে আগামী ১৩ আগস্ট রাত নয়টায় পুরষ্কার বিতরণ ও ১১টায় ব্যান্ড শোর উল্লেখ ছিল।’ নিবেদক ছিল ‘অনিন্দ্য ক্লাব’।

এ ব্যাপারে ২২ নম্বর এনায়েত বাজার ওয়ার্ড কাউন্সিলর সলিম উল্ল্যাহ বাচ্চু চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, ‘ইসমাইল স্মৃতি সংসদ নানান আয়োজন থাকে। ওই এলাকায় অনিন্দ্য ক্লাবও আছে। কিন্তু এবারের আয়োজন নিয়ে আমার সাথে তারা কোন আলাপ করেনি। ওসি সাহেবের কাছে শুনলাম দাওয়াতপত্রে আমাদের নাম আছে এবং চাঁদা দাবি করায় একজন মামলা করেছেন। সেই সূত্রে পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করেছে।’

দাওয়াতপত্রে প্রধান অতিথি হিসেবে কোতোয়ালী থানার ওসি মোহাম্মদ মহসিন, বিশেষ অতিথি স্থানীয় ২২ নম্বর এনায়েত বাজার ওয়ার্ড কাউন্সিলর সলিম উল্ল্যাহ বাচ্চু, কোতোয়ালী থানার এসআই শরীফুজ্জামান, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য রিটু দাশ বাবলু ছাড়াও হাজী মোহাম্মদ রবিউল্লা এবং হাজী মোহাম্মদ সৈয়দুল হক নামে দুই ব্যক্তির নাম উল্লেখ করা হয়।

এফএম

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন