এই দিনে গেরিলা সন্দেহে জিঞ্জিরায় ৮৭ জনকে হত্যা করা হয়

বিজয়ের মাস ডিসেম্বর

0

১ ডিসেম্বর বাংলাদেশের হাজার বছরের সংগ্রামের ইতিহাসের চূড়ান্ত সফলতা ‘মহান মুক্তিযুদ্ধে বিজয়ের’ মাসের প্রথম দিন। দীর্ঘ ৯ মাসের সশস্ত্র সংগ্রামে লক্ষ প্রাণের বিনিময়ে অর্জিত বিজয়কে স্মরণীয় করে রাখতে প্রতি বছরের মত এবারও বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার সঙ্গে মাসব্যাপী নানা অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে পালিত হবে।

দেশের মুক্তিযোদ্ধা সংগঠনগুলো প্রতি বছরই বিজয়ের মাসের প্রথম দিনকে মুক্তিযোদ্ধা দিবস হিসেবে পালন করে আসছে। এবারও বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিনটিকে পালন করছেন তারা।

বাঙালির হাজার বছরের স্বপ্নপূরণ হবার পাশাপাশি বহু তরতাজা প্রাণ বিসর্জন আর মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে এই বিজয় অর্জন হওয়ায় বেদনাবিঁধূর এক শোকগাঁথার মাস এই ডিসেম্বর।

এ মাসেই স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি তাদের এদেশিয় দোসর রাজাকার-আলবদর আল শামসদের সহযোগিতায় দেশের মেধা, শ্রেষ্ঠ সন্তান-বুদ্ধিজীবী হত্যার নৃশংস হত্যাযজ্ঞে মেতে ওঠে। সমগ্র জাতিকে মেধাহীন করে দেয়ার এধরনের ঘৃণ্য হত্যাযজ্ঞের দ্বিতীয় কোন নজির বিশ্বে নেই।

৭১-এ এই সময়টাতে মুক্তিযুদ্ধ সর্বাত্মক রূপ পায়। মুক্তিবাহিনীর কাছে দিন দিন কোনঠাসা হয়ে পড়ে পাক বাহিনী। একের পর এক প্রবল আক্রমণের মুখে পিছু হটতে থাকে পাকিস্তানী সেনাবাহিনী। ১৯৭১ সালের এই দিনে নিউইয়র্ক টাইমস পত্রিকার এক রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়, গেরিলা সন্দেহে জিঞ্জিরার অনেক যুবককে সারিবদ্ধভাবে দাড় করিয়ে হত্যা করা হয়েছে। বুড়িগঙ্গার অপর পাড়ের এই গ্রামটিতে অন্তত ৮৭ জনকে হত্যা করেছে পাক হানাদার বাহিনী। নারী, শিশুরা পর্যন্ত তাদের নিষ্ঠুরতার হাত থেকে রক্ষা পায়নি।

এদিন ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী পার্লামেন্টের উচ্চ পরিষদে বক্তৃতাকালে উপমহাদেশে শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ইয়াহিয়া খানের প্রতি বাংলাদেশ থেকে পাকিস্তানী সৈন্য প্রত্যাহারের আহবান জানান। মুক্তিযোদ্ধাদের তীব্র আক্রমণে পাক বাহিনী সিলেটের শমশেরনগর থেকে পালাতে থাকে। এ সময়ে মুক্তিবাহিনী টেংরাটিলা ও দুয়ারাবাজার শত্রু মুক্ত করে। মুক্তিযোদ্ধাদের অতর্কিত আক্রমণের ফলে পাক বাহিনী সিলেটের গারা, আলিরগাঁও, পিরিজপুর থেকে তাদের বাহিনী গুটিয়ে নিতে বাধ্য হয়।

জুলফিকার আলী ভুট্টো দু’মাস আগে ঢাকায় পিপলস পার্টির যে অফিস উদ্বোধন করেন সেখানে বোমা বিস্ফোরনের ফলে তা মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় এদিনে।

সারাদেশের মত চট্টগ্রামেও বিজয়ের মাসের মাসব্যাপী কর্মসূচির আরম্ভ হচ্ছে কাল। নগরীর আউটার স্টেডিয়ামে মাসব্যাপী মুক্তিযুদ্ধের বিজয়মেলার সূচনা হবে কাল রোববার। মেলার প্রধান পৃষ্ঠপোষক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন।

এআরটি/এসএ

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন