উখিয়ায় বিট কর্মকর্তাকে ম্যানেজ করে বহুতল ভবন নির্মাণ

0

উখিয়ায় ভূমিদস্যুরা অবৈধভাবে বহুতল ভবন নির্মাণকাজ চালাচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার জালিয়াপালং ইউনিয়নের পাহাড়ী পর্যটন এলাকাখ্যাত ছেপটখালীতে স্থানীয় বিট কর্মকর্তাকে ম্যানেজ করে কিছু চিহ্নিত ভূমিদস্যুচক্র অবৈধভাবে বহুতল ভবন নির্মাণকাজ চালিয়ে আসছে বলে জানা গেছে। এ নিয়ে স্থানীয় পরিবেশবাদীরা বিট কর্মকর্তা মনজুরুল আলম চৌধুরীকে দায়ী করছেন।এ নিয়ে বিট কর্মকর্তার নিরব দর্শকের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন স্থানীয়রা। অনুমতিবিহীন সরকারি বনবিভাগের জায়গাতে অবৈধভাবে ভবন নির্মাণ করতে দেয়ায় সাধারণ মানুষের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

জানা গেছে, কক্সবাজার দক্ষিণ বনবিভাগের আওতাধীন উখিয়া রেঞ্জের পর্যটন এলাকাখ্যাত ছেপটখালী বিটের মাদারবনিয়া সিএমসি উচ্চ বিদ্যালয়ের পূর্বপাশে অবৈধভাবে বহুতল মাকের্ট ভবন নির্মাণকাজ চালিয়ে আসছে প্রভাবশালী ভূমি দস্যূচক্র। এ নিয়ে স্থানীয় পরিবেশবাদীরা সংশ্লিষ্ট বিট কর্মকর্তাকে অবগত করেও এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। অন্যদিকে এ ঘটনাকে পুঁজি করে চিহ্নিত ভূমিদস্যুরা বেপরোয়াভাবে সরকারি বনবিভাগের জায়গা দখলে নিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, বিট কর্মকর্তা মনজুরুল আলমকে ম্যানেজ করে ছেপটখালী এলাকার চিহ্নিত ভূমিদস্যু মোহাম্মদ শরিফ, জসিম উদ্দিন, মোহাম্মদ উল্লাহসহ একটি দখলবাজ চক্র মাদারবনিয়া সিএমসি উচ্চ বিদ্যালয়ের এর পুর্ব পাশে বহুতল মার্কেট নির্মাণ করে আসছে। শুধু তাই নয় ওই বিট কর্মকর্তার বিরুদ্ধে স্থানীয়রা নানা অনিয়ম আর দুর্নীতির অভিযোগ তুলেছেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন জনপ্রতিনিধি জানিয়েছেন, অবৈধ ভবন নির্মাণ করার জন্য বিট কর্মকর্তাকে তিন লাখ টাকা দিয়েছেন ভূমিদস্যূ চক্রটি। তবে এব্যাপারে অভিযুক্ত বিট কর্মকর্তা মনজরুল আলম চৌধুরী জানান, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।
পরিবেশ অধিদপ্তরের কক্সবাজার সার্কেলের সহকারী পরিচালক সাইফুল আশ্রাফ জানান,‘পাহাড়ী এলাকায় যদি কেউ অবৈধ মার্কেট নির্মাণ করে থাকে তাহলে জড়িতদের বিরুদ্ধে অবশ্যই আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন