ঈদের নাটকে ‘হ্যাশ ট্যাগ মি টু’

0

পড়াশোনার পাশাপাশি সংসার চালাতে চাকরির খোঁজে নামে মেয়েটি। বন্ধুত্বের ছদ্মবেশে হাত বাড়ায় এক যুবক। চাকরির দেওয়ার কথা বলে সম্ভ্রমহানি করে তার। এই যন্ত্রণা সইতে না পেরে এক সময় সে নিরুদ্দেশ হয়ে যায়। একই ঘটনা ঘটে আরেকটি মেয়ের সঙ্গে। এবারের মেয়েটি বসে থাকেনি। সে হয়ে ওঠে প্রতিবাদী। তার পাশে শুরুতে কেউ দাঁড়াতে চায়নি। একপর্যায়ে আগের মেয়েটিও এসে যোগ দেয় এই প্রতিবাদে। আওয়াজ হয় জোরালো।

এই কাহিনী এবারের কোরবানির ঈদের নাটক ‘হ্যাশ ট্যাগ মি টু’ এর। ইমরাউল রাফাতের পরিচালনায় এই দুটি নাটকে প্রধান চরিত্রে কাজ করেছেন মেহজাবিন ও চট্টগ্রামের মেয়ে তিতান চৌধুরী।
চট্টগ্রাম মেয়ে তিতান আগেই ঢাকায় অভিনয়শিল্পী হিসেবে নিজের জায়গা করে নিয়েছেন। এবারের ঈদে কাজ করেছেন ১১টি নাটকে। এসব নাটক বিভিন্ন চ্যানেল ও ইউটিউবে প্রচারিত হবে।
এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ইমরাউল রাফাতের ‘ হ্যাশ ট্যাগ মি টু’, ‘স্ক্রিন সট’, তপু খানের ‘সেনোরিটা’, ‘ফ্রাই ডে লাভ’, শামীম জামানের ‘আইডি লক’, ‘সেই রকম চা খোর’, ‘বউ বড় না মা বড়’ এবং তৌকীর আহমেদের ‘স্বর্ণলতা’ নাটকে অভিনয় করেছেন। এরই মধ্যে সবগুলো নাটকের কাজই তিনি শেষ করেছেন।

একপর্যায়ে আগের মেয়েটিও এসে যোগ দেয় এই প্রতিবাদে। আওয়াজ হয় জোরালো।
একপর্যায়ে আগের মেয়েটিও এসে যোগ দেয় এই প্রতিবাদে। আওয়াজ হয় জোরালো।

নাটকগুলোতে অভিনয় প্রসঙ্গে তিতান বলেন, ‘এবারের ঈদ আমার অভিনয় জীবনের সেরা ঈদ হতে চলেছে। কারণ এবারের ঈদে বেশ কয়েকজন গুণী নাট্যনির্মাতার নির্দেশনায় কাজ করেছি আমি। বিশেষত শ্রদ্ধেয় তৌকীর ভাইয়ের নির্দেশনায় কাজ করেছি। তার মতো মেধাবী নির্মাতার নাটকে কাজ করতে পারাটা অভিনেত্রী হিসেবে আমার স্বপ্নের লক্ষ্যে পৌঁছার আরও একটি ধাপ অতিক্রম করা। পাশাপাশি অবশ্যই ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাতেই চাই শামীম জামান ভাইসহ ইমরাউল রাফাত ও তপু খানকে। তারা তাদের ভালো ভালো গল্পের নাটকে আমাকে চমৎকার চরিত্রে কাজ করার সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়েছেন।’

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন