আক্রান্ত
১৪৯৯১
সুস্থ
৩০৬১
মৃত্যু
২৪০

ঈদের দিনেই চট্টগ্রামে রেকর্ড ৭৮ জনের করোনাজয়, নতুন শনাক্ত ১১২

0

ঈদের দিনেই করোনার বড় সুখবর পেল চট্টগ্রাম। করোনা শনাক্তের পর একদিনে সবচেয়ে সংখ্যক রোগী করোনাজয় করলেন এদিন। রেকর্ড ৭৮ জনের সুস্থতার দিনে অবশ্য নতুনভাবে নগরের ৯৩ জন ও উপজেলার ১৯ জন মিলিয়ে ১১২ জনের দেহে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়। এর আগে গত ৩০ জুলাই একদিনে সর্বোচ্চ ৭৫ জনের করোনাজয় দেখেছিল চট্টগ্রাম। তাতে করে, এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন দুই হাজার ৩৩১ জন করোনা রোগী। অন্যদিকে, নতুন শনাক্তসহ চট্টগ্রামে করোনা রোগী গিয়ে দাঁড়ালো ১৪ হাজার ৪৫০ জনে। গত ২৪ ঘন্টায় চট্টগ্রামের উপজেলায় দুই জন মারা যাওয়ায় করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা এখন ২৩৩ জন, যাদের ১৬৩ জন নগরের ও ৭০ জন উপজেলার।

শনিবার (১ আগস্ট) সকালে চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি এসব তথ্য জানান।

তিনি জানান, চট্টগ্রামের সরকারি তিনটি ও বেসরকারি দুটি ল্যাব এবং কক্সবাজারের একটি ল্যাবের মধ্যে চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ইউনিভার্সিটি (সিভাসু) ল্যাব ছাড়া অন্যান্য ল্যাব মিলিয়ে ৬১৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১১২ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়। শনাক্তদের মধ্যে নগরের ৯৩ জন এবং বিভিন্ন উপজেলার ১৯ জন। একইসাথে গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে করোনা থেকে ৭৮ জন সুস্থ হয়েছেন এবং গত ২৪ ঘণ্টায় উপজেলার দুজন মারা গেছেন।

গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামের প্রধান করোনা পরীক্ষাগার ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি)-তে বিদেশগামীদের বাধ্যতামূলক করানো করোনা টেস্টসহ দিনের সর্বাধিক ২২৬ জনের নমুনা পরীক্ষায় করোনা করা হয়। তাতে শনাক্ত হয় মাত্র ১০ জন। এদের সবাই নগরের বাসিন্দা।

চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ইউনিভার্সিটি (সিভাসু) ল্যাবে টানা দ্বিতীয় দিনের মতো গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা হয়নি।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ল্যাবে ২৪ ঘণ্টায় ১৪৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করে নগরের ২৫ জনের শরীরে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে মাত্র ১১৮টি নমুনা পরীক্ষা করেই দিনের সর্বাধিক করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয় ৪৫ জন, যাদের ৩০ জন নগরের এবং ১৫ জন বিভিন্ন উপজেলার।

অন্যদিকে, বেসরকারি ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় ৮০টি করোনার নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয় ২০ জনের। যাদের ১৮ জনই নগরের, বাকি ২ জন উপজেলার।

শেভরণ ল্যাবে ৪১ জনের নমুনা পরীক্ষা করেই ১২ জনের দেহে করোনাভাইরাসের জীবাণু পাওয়া যায়। যাদের ১০ জন নগরের ও ২ জন উপজেলার বাসিন্দা।

এদিন, কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ল্যাবে ৮ জনের করোনার নমুনা পরীক্ষা করেও কোন করোনা রোগী পাওয়া যায়নি।

উপজেলা পর্যায়ে নতুনভাবে করোনা শনাক্ত ১৯ জনের মধ্যে আবারও শীর্ষস্থানে ফিরেছে হাটহাজারী উপজেলা। সেখানে শনাক্ত হয় সর্বাধিক ৯ জন। পার্শ্ববর্তী রাউজান উপজেলায় শনাক্ত হয় ৭ জন। এছাড়া আনোয়ারা, ফটিকছড়ি ও সীতাকুণ্ডে ১জন করে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে।

এমএহক

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ManaratResponsive

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন
ksrm