‘ইন্ডিয়ান রেসিপি’ নিয়ে ব্যস্ত ভীষণ সাতকানিয়ার সাংসদ নদভী

0

করোনাভাইরাসের এই দুর্যোগে দেশের অন্যান্য স্থানের মতো চট্টগ্রামের সাতকানিয়া-লোহাগাড়ায়ও আতঙ্ক বিরাজ করছে, ঠিক সেই সময় এলাকার সংসদ সদস্য আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামউদ্দিন নদভীর দিন কাটছে বউ-বাচ্চা নিয়ে ভারতের লক্ষ্মৌর কায়দায় নিজ হাতে রান্নাবান্না করে।

মহামারীর এই সংকটকালে নিজ এলাকায় নেই সাংসদ নদভী। চট্টগ্রাম নগরীর চান্দগাঁওয়ের বাসা থেকে বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) রাতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক লাইভে এসে তিনি সবাইকে রান্নাঘরে গিয়ে রান্না করার পাশাপাশি করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি পেতে দোয়া চান এবং সরকারের নির্দেশনা মেনে চলার আহ্বান জানান।

১ মিনিট ৩১ সেকেন্ডের সেই ফেসবুক লাইভে তিনি বলেন, ‘প্রিয় এলাকাবাসী, সাতকানিয়া-লোহাগাড়াবাসী আমি আপনাদের প্রিয় এমপি ড. আবু রেজা নদভী বলছি। আপনারা সবাই কেমন আছেন? আশা করি ভালো আছেন। ভালো হলে, ভালো করে আল্লাহ তা’লার ইবাদত করেন, নামাজ দোয়া পড়েন। করোনাভাইরাস থেকে আমাদেরকে সবাইকে মুক্তি দেওয়ার জন্য আল্লাহ তা’লার কাছে ফরিয়াদ করেন, দোয়া করেন। এবং সরকারের যে নির্দেশনা আছে এগুলো মেনে চলুন। তাহলে আমরা সবাই আল্লাহ তা’লার রহমতে রক্ষা পাবো ইনশাআল্লাহ।’

তিনি বলেন, ‘আর পাশাপাশি আপনার ঘরে বসে বসে স্টাডি করেন, লেখাপড়া করেন। নামাজ পড়েন ভালো করে। এবং রান্না ঘরে আসেন। রান্না ঘরে এসে রান্না করেন। আমি এখন লক্ষ্মৌর স্টাইলে, লক্ষ্মৌর স্টাইলে আমি এখন খেচুড়ি রান্না করতেছি। সবারই জন্য এবং সবাই আজকে খাবেন।’

এরপর ক্যামেরার আড়াল থেকে একটি নারীকণ্ঠ কিছু একটা শিখিয়ে দেন। এরপর সাতকানিয়া-লোহাগাড়ার এই সাংসদ বলেন, ‘…এবং পরিবার, ছেলেমেয়েদেরকে সময় দিচ্ছি। সবাইকে সময় দিচ্ছি। রান্না করতেছি লক্ষ্মৌর স্টাইলে। আপনারাও পরিবারকে সময় দেবেন। পরিবারের জন্য একটু ত্যাগ করবেন। যাতে কেউ কষ্ট না পান।’

প্রসঙ্গত, গেল বছর জুলাইয়ের প্রথম সপ্তাহে বন্যায় সাতকানিয়া ও লোহাগাড়া উপজেলার অন্তত চার লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি অবস্থায় ছিল। কিন্তু সাংসদ নদভীর পা পড়েনি ক্ষতিগ্রস্থ এলাকায়। পানি সরে গেলে নামমাত্র ত্রাণ নিয়ে ফটোসেশনের অভিযোগ আছে, আছে ক্ষোভও।

চলতি বছর জানুয়ারির মাঝামাঝি তার মেয়ের বিবাহোত্তর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে মঞ্চে নদভী-কন্যা ও নতুন বরকে সামনে রেখে কিছু মেয়ের নাচার ভিডিও ভাইরাল হয়। পাশাপাশি আরেকটি ভিডিওতে এমপি নদভী মঞ্চে উঠে নাচের পক্ষে হাদিসের রেফারেন্স দিয়ে বক্তব্য রাখার ভিডিও ভাইরাল হলে তিনি সমালোচনার মুখে পড়েন।

গত ফেব্রুয়ারি মাসে সাতকানিয়া উপজেলার আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা এই সাংসদকে ছাড়া শুরু করে তার তোপের মুখে পড়েন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। নদভী ইউএনওকে বলেন, ‘তুই কিসের ইউএনও তোকে কে ইউএনও বানিয়েছে, বেয়াদব কোথাকার, আদব কায়দা জানোস না?’। এই খবর প্রকাশ হলে চারদিকে সমালোচনার মুখে পড়েন নদভী।

গত ১ মার্চ সাতকানিয়া মাদার্শা বাবুনগরের একটি মাদ্রাসায় আয়োজিত ইসলামী মহাসম্মেলনে আহবায়ক হিসেবে বক্তব্য দেওয়ার সময় সাংসদ নদভী প্রতিপক্ষকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘আমি যেমন তেমন এমপি না। যারা থ্রেট দিচ্ছেন তাদেরকে আমরা চিনি, একটা একটা সাইজ করবো।’

এছাড়াও নগরে একটা ঘরোয়া বৈঠকে ভোট ডাকাতির কথা স্বীকার করে তিনি আওয়ামী লীগের অনেক বড় নেতাকেও তাক লাগিয়ে দেন।

সাতকানিয়ার এক জনপ্রতিনিধি নাম প্রকাশে অসম্মতি জানিয়ে চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, ‘উনি আছেন উনার তালে। এলাকার প্রতি তার কোন দায়বদ্ধতা অন্তত তার কাজে কারবারে প্রমাণ হয় না।’

এফএম/সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন