আক্রান্ত
১৮৬৯৫
সুস্থ
১৫০৬২
মৃত্যু
২৯০

ইডেনে বাংলাদেশ-ভারত প্রথম দিবারাত্রির টেস্ট শুক্রবার দুপুরে

0

কলকাতার ইডেন গার্ডেনে শুক্রবার দুপুর দেড়টায় বাংলাদেশ-ভারতের টেস্ট ম্যাচ দিয়ে মাঠে গড়াচ্ছে উপমহাদেশের প্রথম দিবারাত্রির টেস্ট। যদিও ২০১৫ সালের ২৭ নভেম্বর প্রথমবারের মতো দিবারাত্রির টেস্ট খেলেছিল অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড। এরপর প্রায় ৪ বছর দিবারাত্রির টেস্ট হয়েছে আর মাত্র দশটি। যে কারণে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যকার টেস্টটি ইতিহাসের দ্বাদশ দিবারাত্রির টেস্ট।

এর আগে বাংলাদেশ-ভারত কেউই খেলেনি গোলাপি বলের টেস্ট। শুক্রবার কলকতায় দুই দলের খেলোয়াড়দের হতে যাচ্ছে নতুন অভিজ্ঞতা। ক্রিকেটের নন্দনকানন ইডেন গার্ডেনসে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট শুরু দুপুর দেড়টায়।

উপমহাদেশের প্রথম দিন-রাতের টেস্টকে স্মরণীয় করে রাখতে ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অব বেঙ্গল (সিএবি) আনুষ্ঠানিকতার কমতি রাখছে না। ভারতীয় বোর্ড সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি কলকাতা রাজ্য ক্রিকেটের প্রতিনিধি হওয়ায় আয়োজন যেন রূপ নিয়েছে মহোৎসবে!

ইডেন টেস্টের উদ্বোধনী মঞ্চে আমন্ত্রিত হয়ে যাচ্ছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ২০০০ সালের নভেম্বরে ঢাকায় ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের অভিষেক টেস্ট খেলা ক্রিকেটাররা।

ম্যাচের আগে ইডেন হয়ে উঠেছে গোলাপিরঙা। ম্যাচ বলের রংয়ের সঙ্গে মিল রেখে জায়ান্টস্ক্রিন থেকে শুরু ব্র্যান্ডিংয়ের সবটাই সেজেছে গোলাপিতে। উৎসবের ঢেউ কলকাতা থেকে বাংলাদেশে আছড়ে পড়েছে। সেটি আরও আনন্দময় করে তুলতে পারে টাইগারদের মাঠের পারফরম্যান্স।

প্রথম টেস্টে ইনিংস ও ১৩০ রানের ব্যবধানে হারের পর এবার কৃত্রিম আলোয় নতুন চ্যালেঞ্জের সামনে পড়া বাংলাদেশ দলকে নিয়ে আশাবাদী মানুষ পাওয়া যাবে কমই! বিশেষ করে ইন্দোরে তিন দিনেই টেস্ট হারের পর।

এক নজরে দিবারাত্রির টেস্টের যত রেকর্ড

সর্বোচ্চ ম্যাচ: অস্ট্রেলিয়া, ৫টি
সর্বোচ্চ জয়: অস্ট্রেলিয়া, ৫টি
সর্বোচ্চ পরাজয়: ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ৩ ম্যাচে ৩টি
সবচেয়ে বড় ব্যবধানে জয়: ইংল্যান্ড, ইনিংস ও ২০৯ রানে, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে
রানের হিসাবে সবচেয়ে ছোট ব্যবধানে জয়: অস্ট্রেলিয়া, ৩৯ রানে পাকিস্তানের বিপক্ষে
উইকেটের হিসাবে সবচেয়ে ছোট ব্যবধানে জয়: অস্ট্রেলিয়া, ৩ উইকেটে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে
ইনিংসে সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ: পাকিস্তান ৫৭৯/৩ (ডিক্লে.), ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে
ইনিংসে সর্বনিম্ন দলীয় সংগ্রহ: ইংল্যান্ড ৫৮/১০, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে

দিবা-রাত্রির টেস্ট ঘিরে এত আয়োজন। অথচ রাখা হয়নি কোনো প্রস্তুতি ম্যাচ। আয়োজকদের এমন কাণ্ড বিস্ময়করই বটে! নিজেদের মাঠ ও পরিচিত ইডেন হওয়ায় ভারতের সমস্যা কমই। সাদা পোশাকে তাদের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স নতুন চ্যালেঞ্জে এগিয়ে রাখবে অনেকটাই। অতিথি দল হিসেবে তাই ম্যাচের আগে কিছুটা হলেও পিছিয়ে পড়ছে বাংলাদেশ।

লাল বলের দুঃখ গোলাপি বলে ভোলানো সহজ হবে না বাংলাদেশ দলের জন্য। টেস্টের অন্যতম সেরা, আত্মবিশ্বাসী, ভারসাম্যপূর্ণ একটি দলের বিপক্ষে চোটজর্জর বাংলাদেশ কৃত্রিম আলোয় গোলাপি বলের চ্যালেঞ্জ কীভাবে সামলায় সেটিই দেখার অপেক্ষা।

প্রথম টেস্ট জিতে সিরিজে এগিয়ে যাওয়া ভারত ঘরের মাঠের নতুন চ্যালেঞ্জ নিতে নির্ভার। ঠিক উল্টো মেরুতে বাংলাদেশ। ওপেনিং জুটি (ইমরুল-সাদমান) ফ্লপ হলেও খেলানোর সুযোগ নেই তৃতীয় ওপেনার সাইফ হাসানকে। আন্তর্জাতিক অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা এ তরুণ ব্যাটসম্যান চোটের কারণে ছিটকে গেছেন স্কোয়াড থেকেই।

ইডেন গার্ডেনের উইকটে গোলাপি বলে কেমন আচরণ করবে তাই হয়তো বুঝার চেষ্টা করছেন বাংলাদেশের অধিনায়ক ও কোচ

প্রথম ম্যাচে দ্বাদশ খেলোয়াড় হিসেবে ফিল্ডিং করার সময় আঙুলে পাওয়া চোট সাইফকে ঠেলে দিয়েছে বিশ্রামের পথে। আরেক তরুণ নাঈম হাসান মাথায় বলের আঘাত পেয়েছেন ইডেনের নেটে বোলিং করার সময় ফিরতি বল থামাতে গিয়ে। এ অফস্পিনারের চোট অবশ্য গুরুতর নয়। সাকিব-তামিমবিহীন দলে ছোটখাটো চোট সমস্যাও দুঃসময়ে আত্মবিশ্বাসে চিড় ধরাতে নিয়ামক হতে পারে!

বিসিবি পরিচালক–নির্বাচকদের একটা অংশ সাবেক ক্রিকেটার। তারা দল বেধে কলকাতা চলে যাওয়ায় বিসিবি কার্যালয় অনেকটাই ফাঁকা। তবে স্টেডিয়ামে ইমার্জিং এশিয়া কাপের সেমিফাইনাল ম্যাচ (বাংলাদেশ-আফগানিস্তান) চলায় বৃহস্পতিবার মাঠ ছিল সরব। ইমার্জিং দলের দুই প্রতিনিধি সৌম্য সরকার-নাজমুল হোসেন শান্ত টেস্ট দলের বাইরে থাকলেও দূর থেকে মুমিনুল-মুশফিকদের জন্য জানালেন শুভকামনা। দুই ব্যাটসম্যানেরই প্রত্যাশা, নতুন অভিজ্ঞতা যেন সুখকর হয় বাংলাদেশের।

বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার আসন্ন টেস্ট ম্যাচটি হতে যাচ্ছে ইতিহাসের ২৩৬৯তম। শুক্রবার দুই অধিনায়ক টস করতে নামার আগেই মাঠে গড়িয়েছে ২৩৬৮টি টেস্ট ম্যাচ। তবে হিসেবটা যদি নামিয়ে আনা হয় শুধুমাত্র দিবারাত্রির টেস্টে, তাহলে শুক্রবারের ম্যাচটি হবে মাত্র ১২তম!

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ManaratResponsive

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন
ksrm