আলীকদমে অপহৃত শিশু পটিয়ায় উদ্ধার, আটক ২

0

বান্দরবানের আলীকদম থেকে অপহৃত জাহিদকে (১২) উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার (৪ আগস্ট) রাত ৩টার দিকে পটিয়া হাইদগাঁও থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। এ সময় দুই অপহরণকারীকেও আটক করা হয়েছে। উদ্ধার হওয়া শিশু দানু সর্দার পাড়ার বাসিন্দা রুবি আক্তারের ছেলে।
আটককৃতরা হলেন, পটিয়া হাইদগাঁও এলাকার বাসিন্দা মো. হাসানের ছেলে মো. কালাম, ময়মনসিংয়ের বাসিন্দা মো. মোকলেস উদ্দিনের ছেলে মো. আলম।

মঙ্গলবার (৬ আগস্ট) বিকাল সাড়ে ৩ টায় প্রেসব্রিফিংয়ের মাধ্যমে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন আলীকদম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রফিক উল্লাহ্।

প্রেসব্রিফিংয়ে রফিক উল্লাহ্ জানান, আপহৃত শিশুকে গত রোববার আলীকদম বাসটার্মিনাল থেকে মো. আলম চকরিয়া হাসেরদীঘি নিয়ে গিয়ে তার শ্বশুর আব্দুর রহিমের হাতে তুলে দেন। পরে আব্দুর রহিম শিশুটিকে মালুংঘাট এলাকায় একটি বাড়িতে রাখেন। সেখান থেকে আব্দুর রহিম ও রিদুয়ান শিশুটিকে দোহাজারি নিয়ে মো. কামালের হাতে দেয়। দোহাজারি থেকে কালাম ও রিদুয়ান ওই শিশুকে পটিয়া হাইদগাঁওয়ে কামালের বাড়িতে নিয়ে গিয়ে আটকে রাখে। পরে কালাম তার নাম্বার থেকে অপহৃত জাহিদের ভাই পারভেজের নাম্বারে কল দিয়ে এক লাখ ২০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবী করেন। মুক্তিপণ দাবির পরে গত সোমবার দুপুর ১২টায় জাহিদের মা রুবি আক্তার আলীকদম থানায় অভিযোগ করেন।

তিনি আরও জানান, জাহিদের মা বাদী হয়ে থানায় মামলা করলে পুলিশ মুক্তিপণ দাবিকারীর মোবাইল নম্বর ট্র্যাকিং করে অপহরণকারীদের অবস্থা নিশ্চিত করে। আলীকদম থানার এসআই মতিউর রহমান ও এএসআই সুকান্ক সিকদার নেতৃত্বে পুলিশ অপহৃত জাহিদকে উদ্ধার করে এবং দুইজনকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে। অপহরণের সঙ্গে আরও জড়িত থাকতে পারে বলে জানান আলীকদম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা।

অপহৃত জাহিদের মা রুবি আক্তার বলেন, ‘আমার ছেলেকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করা হয়েছে। বর্তমানে আমার ছেলে অনেক ভয়ের মধ্যে আছে। গত দুইদিন আমরা সবাই চিন্তিত ছিলাম। ছেলেকে কাছে পেয়ে অনেক ভালো লাগছে।

এএইচ

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন