আফগানদের হেসেখেলে হারিয়ে টানা তৃতীয় জয়ে শীর্ষে নিউজিল্যান্ড

0

সবশেষ বিশ্বকাপে একটুর জন্য প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ ট্রফি স্পর্শ করা হয়নি! হয়েছিলেন রানার্স আপ। এবারও ঠিক ফেভারিটদের ফেভারিট হয়েই বিশ্বকাপে পা রেখেছে নিউজিল্যান্ড। তারই পথ ধরে তুলে নিয়েছে টানা তৃতীয় জয়। শনিবার আফগানিস্তানকে হারিয়েছে অনায়াসে, হেসে-খেলে! আফগানিস্তান হারলো টানা তৃতীয় ম্যাচ।

টনটনের দ্য কুপার এ্যাসোসিয়েটস কাউন্টি গ্রাউন্ডে ৭ উইকেটে জয় তুলে নেয় নিউজিল্যান্ড। ১০৭ বল হাতে রেখেই জয়!

দিবা-রাত্রির লড়াইয়ে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নামে আফগানরা। কিন্তু যুদ্ধ বিধ্বস্ত দেশটির ক্রিকেটারদের বড় সংগ্রহ গড়তে দেয়নি কিউই বোলাররা। তাদের তোপে মাত্র ১৭২ রানে শেষ তাদের ইনিংস। জবাব দিতে নেমে সতর্ক হয়েই খেলেছে নিউজিল্যান্ড। শেষ পর্যন্ত ৩২.১ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে তুলে নেয় আরেকটি জয়!

কিউইদের জয়ের নায়ক পেসার জেমস নিশাম। তার বোলিং তোপেই সর্বনাশ প্রতিপক্ষের। তিনি ক্যারিয়ারসেরা বোলিংয়ে নিয়েছেন ৫ উইকেট। ম্যাচসেরা তিনিই! ৪ উইকেট লুকি ফার্গুসনের।

সংক্ষিপ্ত স্কোর
আফগানিস্তান: ৪১.১ ওভারে ১৭২/১০ (নুর আলি ৩১, জাজাই ৩৪, রহমত ০, শাহিদি ৫৯, নাইব ৪, নবি ৯, নাজিবউল্লাহ ৪, ইকরাম ২, রশিদ ০, আফতাব ১৪, হামিদ ৭*; ফার্গুসন ৪/৩৭, নিশাম ৫/৩১, ডি গ্র্যান্ডহোম ১/১৪)
নিউজিল্যান্ড: ৩২.১ ওভারে ১৭৩/৩ (গাপটিল ০, মানরো ২২, উইলিয়ামসন ৭৯*, টেলর ৪৮, ল্যাথাম ১৩*; আফতাব ৩/৪৫)
ফল: নিউজিল্যান্ড ৭ উইকেটে জয়ী
ম্যাচসেরা: জেমস নিশাম।

দিবা-রাত্রির এই ম্যাচে টস ভাগ্য ছিল কেন উইলিয়ামসনের পক্ষে। প্রথমে তিনি আফগানদের হাতে ব্যাট তুলে দেন। এরপর নেমে ৪১.১ ওভারে অলআউট হয়ে দলটি তুলে ১৭২ রান। ১০ ওভারে মাত্র ৩১ রানে ৫ উইকেট নেন নিশাম। লুকি ফার্গুসন নেন ৪ উইকেট।

লক্ষ্যটা ছিল মামুলি। ১৭৩। আর সেই সংগ্রহটা টপকাতে বেশ সতর্ক হয়েই খেলেছে কিউইরা। এছাড়া কিছু করারও ছিল না। দলের সংগ্রহে কোন রান যোগ না হতেই সাজঘরের পথ ধরেন মার্টিন গাপটিল। এরপর সম্ভাবনা জাগিয়েও আফতাব আলমেরই শিকার কলিন মনরো (২২)।

তারপর অবশ্য দুই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান কেন উইলিয়ামসন ও রস টেলর পথ দেখান দলকে। গড়েন ৮৯ রানের জুটি। টেলর ফেরেন আফতাবেরই বলে ৫২ বলে ৪৮ রানে।

তারপর ফিনিশিংটুকু দিলেন অধিনায়ক উইলিয়ামসন। দলকে জিতিয়ে ৯৯ বলে ৭৯ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। সঙ্গে টম লাথাম অপরাজিত ১৩।

এর আগে আফগানদের দারুণ সূচনা এনে দেন দুই ওপেনার হযরতউল্লাহ জাজাই ও নূর আলি জাদরান। তারা গড়েন ৬৬ রানে জুটি। কিন্তু জেমস নিশাম তাদের ভয়ঙ্কর হয়ে উঠতে দেননি। শুরুতে ফেরান জাজাইকে। ২৮ বলে ৩৪ রান করেন তিনি।

তারপরই আউট নূর আলি। তিনি তুলেন ৩৮ বলে ৩১। তারপর যা একটু লড়লেন হাসমতউল্লাহ শহিদি। ৯৯ বলে ৫৯ রান তুলে কিছুটা হলেও সম্মানজনক স্কোর এনে দেন দলকে। অন্যরা শুধু উইকেটে টিকে থাকার বৃথা চেষ্টাটুকু করেছেন! শেষ পর্যন্ত এই অল্প পুঁজি নিয়ে লড়াই করা হয়নি।

কিউইরা তুলে নেয় ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে টানা তৃতীয় জয়। প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১০ উইকেটের সহজ জয় তুলে নেয় তারা। এরপর দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশ বেশ লড়েছে। টাইগারদের বিপক্ষে দুই উইকেটে জেতে কিউইরা। এবার হারাল আফগানদের! তিনে তিন! বিশ্বকাপের পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে (৬ পয়েন্ট) তারাই! চার পয়েন্ট নিয়ে এরপরই অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড।

অন্যদিকে অস্ট্রেলিয়ার পর শ্রীলঙ্কা, এবার নিউজিল্যান্ডের সামনেও আত্মসমর্পন আফগানিস্তানের। সেমি-ফাইনালে উঠার পথটা কঠিনই হয়ে গেল তাদের।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm